Author

Samar Deb ।। সমর দেব

নিষ্প্রভ পালক
সমর দেব
 

একটা সবুজ পালক নিয়ে বছরের পর বছর ক্লান্তিহীন অপেক্ষা করেছি
রোদ ঝড় বৃষ্টিতে অনেক ক্ষয়েছে, এতদিনে ধুসরতা বেড়েছে অনেক
ফ্যাকাসে সবুজ এই ক্ষয়ে যাওয়া পালক কী করে তোমাকে দিই!
নিদারুণ লজ্জা করে, একটা জীবন বড় বেশি ক্ষুদ্র মনে হয়
আমার বাবাও এরকম আকাঙ্ক্ষা নিয়ে চলে যেতে বাধ্য হয়েছিল
সেকথা মায়ের মুখে প্রকারান্তরে কতবার শুনতে হয়েছে

অন্য কিছু ছিল না কখনও, ওই এক পাখির সবুজ পালক ছাড়া
এই নিবেদনে গ্লানিবোধ ছিল জানি, তবু অসহায়তা ছিল খুব
সেভাবে ডাকোনি কখনও যদিও অপেক্ষায় ছিলাম হাজার বছর
সেভাবেই ক্ষয়ে গেছে আমাদের সস্তার একেকটি জীবন
পৃথিবীকে কতবার প্রদক্ষিণ করে সরে গেছে ক্লান্ত চাঁদ
ক্ষয়ে গেছে, দিনরাত মুছে গেছে পাখির পালকের দুরন্ত সবুজ

সেভাবেই আজও এতদিন পরে জানালায় বসে আছো গালে হাত রেখে
বলো সেই রং আজও কি অম্লান আছে চোখের পাতায়?

Write comment (0 Comments)

অস্তিত্বের সারাৎসার

সমর দেব  

কথাটা জলের মতো সহজ, ইচ্ছে হয়ে ছিলি মনের মাঝে। তারপর এই আকাশ, এই বাতাস, এই চরাচর, এই আবিশ্ব প্রাণ। এইখানে ‘আমি’, আমার অস্মিতা, সকলের নিজ নিজ ভুবন। কেউ পর নয়, সকলেই আপন। আমার আপনার সঙ্গে সকলের আপন সম্পর্কের এই রসায়ন গড়ে তোলে সব আমির নিজস্ব ভাষা, ভাষার সূত্রে সমস্ত অনুভব। এই বেঁচে থাকা, এই স্বপ্ন, এই শ্রম, এই আশা, এই স্পর্ধা, এই অহঙ্কার...সব মিলিয়ে আমিত্ব। হোমো ইরেক্টাস থেকে বা তারও আগে থেকে শুরু করে সমস্ত সংগ্রাম, জীবনে টিঁকে থাকা ও প্রজননের সমস্ত ফিকির ও কৌশল, সমস্ত পাপ ও পুণ্য, সমস্ত অর্জন ও বিসর্জন, সমস্ত ত্যাগ ও তিতিক্ষা এবং অবিরত জীবনস্রোত...সব বয়ে চলেছে আমার মাতৃভাষা, সকলের মাতৃভাষা। মানুষের হাজার হাজার বছরের উত্তরণ, সভ্যতার সমস্ত বাঁক ও অগ্রগমন বিধৃত রয়েছে সমাজ-ব্যক্তির মাতৃভাষায়। এভাষা জন্মসূত্রে প্রাপ্তি, যেমন আমার শারীরিক বৈশিষ্ট্যগুলি, জৈবিক প্রবণতাগুলি পেয়েছি পিতৃমাতৃ সূত্রে। জিনবাহিত শারীরিক ও প্রবণতামূলক বৈশিষ্ট্যগুলি যেমন আমার একান্ত নিজস্ব, যেমন এসব আমি সগৌরবে আমৃত্যু বয়ে চলি, তেমনই আমার মাতৃভাষা উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্তি এবং একে আমি সগৌরবে বয়ে চলতে চাই আমৃত্যু। এই মাতৃভাষার সূত্রেই আমি বিনা আয়াসে পেয়ে গেছি পূর্বপুরুষের, আদি মাতা ও গোষ্ঠীপিতার সমূহ অর্জন। সমস্ত স্বপ্ন, আশা-আকাঙ্ক্ষা, ভয় ও সাহসিকতা, প্রকৃতি ও প্রাণ। অতএব, আমার আমিত্ব, আমার অস্তিত্ব মাতৃভাষার ওপরে দাঁড়িয়ে আছে প্রবল পুরুষের মতো। মাতৃভাষাকে নিয়েই আমি পৃথিবীর বুকে আমৃত্যু রসগ্রহণ করতে পারি। আ’মরি বাংলা ভাষা।

 

Write comment (0 Comments)