Mohool Potrika
Login Here  Login::Register
  • অণুগল্প সংখ্যা । বর্ষা । ২০২০
  • শোনো গো দখিন হাওয়া
  • মহুল ওয়েব ।। অষ্টম সংখ্যা ।। একুশে ফেব্রুয়ারি ২০
  • মহুল ওয়েব ।। উৎসব সংখ্যা ।। মহলয়া ২০১৯
  • মহুল ওয়েব অনুগল্পের আড্ডা (১)
  • মহুল ওয়েব ।। উৎসব সংখ্যা ।। মহলয়া ২০১৮
  • মহুল ওয়েব দ্বিতীয় সংখ্যা
  • মহুল ওয়েব প্রথম সংখ্যা
    আঙুলে ছোঁয়াও তুমি কবিতার ঘ্রাণ...

আমাদের কথা

আমাদের শরীরে লেপটে আছে আদিগন্ত কবিতা কলঙ্ক । অনেকটা প্রেমের মতো । কাঁপতে কাঁপতে একদিন সে প্রেরণা হয়ে যায়। রহস্যময় আমাদের অক্ষর ঐতিহ্য। নির্মাণেই তার মুক্তি। আত্মার স্বাদ...

কিছুই তো নয় ওহে, মাঝে মাঝে লালমাটি...মাঝে মাঝে নিয়নের আলো স্তম্ভিত করে রাখে আখরের আয়োজনগুলি । এদের যেকোনও নামে ডাকা যেতে পারে । আজ না হয় ডাকলে মহুল...মহুল...

ছাপা আর ওয়েবের মাঝে ক্লিক বসে আছে। আঙুলে ছোঁয়াও তুমি কবিতার ঘ্রাণ...

অণুগল্প সংখ্যা । বর্ষা । ২০২০



IMG 20200628 185805  

 

 

 

 তর্ক করতে হয়েছে এবং তর্কের শেষে অপ্রিয় হতে হয়েছে এসব বিষয় যখনই উত্থাপন করেছি।  কখনো এতটাই অপ্রিয় হয়েছি, ঘুরে দাঁড়াবার ইচ্ছেটুকুও হারিয়েছি। মাঝে মাঝে একেকটা  কথপোকথন মনে পড়েছে আর মুষড়ে পড়েছি। তারপর হয়তো নিজেকেই আবার উঠে দাঁড়াতে সাহায্য করেছি। মাঝে মাঝে অভিমান হয়, মনে হয়, থাক, এসব নিয়ে কিছু না বলাই ভালো। আমার কী! কিন্তু সামনে ঘটে গেলে কী করা, আর যদি প্রতিনিয়ত ঘটে এবং ঘটতেই থাকে! বিভিন্ন ব্যক্তির মাধ্যমে।  

যেমন, ‘শ্বশুর বাড়ি গিয়ে থাকব! ফুঃ!’  

নিজের ঔচিত্যবোধ নিয়ে গর্ব করা কোনও পুরুষ ঠিক এইভাবেই বলেছে। এর যথাযথ উত্তরটুকু দেওয়ার পরও তাকে তার জায়গা থেকে একচুলও নড়াতে পারিনি। এটা হয়তো আমার  অক্ষমতা। এসব অক্ষমতা নিয়েই একদিন মরে যাবো। যেসব ব্যাপারগুলোকে অসাম্যের ধ্বজা বলে মনে হয়, সেগুলোকেই স্বাভাবিক এবং যা হওয়া উচিত বলে মনে হয় সেগুলোকে ‘ফেমিনিস্ট’ বলে শুনতে শুনতে মারা যাবো। কেন,ও তো তোমার বাড়ি এসে থাকছে, তাহলে ওর বাড়ি যেতে তোমার আপত্তি কেন? ও তো এসে থাকবেই, সেটাই তো নিয়ম। আমি কেন থাকতে যাবো? আমি যাই, গিয়ে খানিকক্ষণ বসে চলে আসি মাঝে সাঝে। কালে ভদ্রে। কিন্তু শ্বশুর বাড়ি থাকি না বাবা! এমন ভাবেই বলা, যেন যাওয়া এবং থাকাটা খুব লজ্জার। খুব  গ্লানির। অথচ একটি মেয়ে, সে তার বাড়িকে একদিনেই ঋণ শোধ করে দিয়ে পেছনে ফেলে সেই যে চলে আসবে, তারপর থেকে তাকে যতবার যেতে হবে, অনুমতিক্রমেই যেতে হবে। যখন মনে হবে, যদ্দিনের জন্যে মনে হবে যেতে পারবে না। থাকতে পারবে না। এবং তার নিজের বাড়ির নামও একদিনের মাথায় পালটে গিয়ে ‘বাপের বাড়ি’ হয়ে যাবে। এবং তার ‘শ্বশুরবাড়ি’ কে ভালবেসে সদা হাস্য মুখে নিজের মজ্জায় নিয়ে চলতে হবে। সেখানে থাকবে গর্ব, কৃতজ্ঞতা, সেবার মনোভাব, ‘মেয়েরা মায়ের জাত’ এর প্রমাণ। একদিনের মাথায় সেই বাড়িটিকে ‘তোমাদের বাড়ি’ বলা  চলবে না, বলতে হবে ‘আমাদের বাড়ি’ সে যতই মনে না হোক। তাকে আবার এটাও শুনতে হবে ‘তোমাকে তো যথেষ্ট স্বাধীনতা দেওয়া হচ্ছে, এর থেকে বেশি আর কী  চাই?’ যেন স্বাধীনতা কারো দেওয়ার ওপরে নির্ভরশীল, যেন স্বাধীনতা লিঙ্গ নির্বিশেষে জন্মগত অধিকার নয়।

এ সমস্ত শুধুমাত্র পুরুষেরা করে, তা একেবারেই নয়। আমি বিভিন্ন লেখায় বার বার একটি কথা বলেছি, যত বেশি পুনরাবৃত্তিমূলক হোক না কেন, তবু বলব। যে এই সমস্ত অসাম্যের বা বলা ভাল পিতৃতান্ত্রিক মানসিকতার ধারক এবং বাহক পুরুষ-নারী উভয়েই। যত না বেশি পুরুষদের আপত্তি দেখেছি, তার চেয়ে অনেক গুন বশি আপত্তি দেখেছি মহিলাদের – ওকে দিয়ে বাড়ির কাজ করাচ্ছে! কী সাংঘাতিক মেয়ে রে বাবা। কিংবা, ইস, ওকে সারাজীবন এক গ্লাস জল ভরেও খেতে হয়নি, অথচ এমন  মেয়ের পাল্লায় পড়ল, এখন সব করতে হচ্ছে। কিংবা, পুরো মেয়েলি, সব বাড়ির কাজ করতে পারে।

শুনুন, কেউ কিছু পারে এবং করতে চায়, সেটা স্বাভাবিক এবং প্রশংসনীয়। কেউ কিছু করতে পারেনা, সেটা লজ্জার। কেউ কিছু করতে চায়না, এবং চায় সব কিছু আরেকজন করে দিক, এটা তার জন্যে করুণার। যেসব কাজ মেয়েদের করতে দেখে অভ্যস্ত আমরা, আর ছেলেদের না করতে দেখে, সেগুলো কে মেয়েলি বলে হেয় করে নিজেদের একাংশকে এইভাবে অসম্মান করতে বিন্দুমাত্র গ্লানিটুকু না হয়ে থাকলে আপনি নীচতার পরিবাহক। এবং আপনার পরিশোধন আশু প্রয়োজন।

কিছুদিন আগে এ ধরণের কোনও এক প্রসঙ্গে আমি এবং আমার বন্ধু তথা সহকর্মী আরেকজন সহকর্মী কে যখন বলেছিলাম আপনার স্ত্রী কিছু বলেননা? উনি পরিত্রাণের হাসি হেসে বলেছিলেন   ‘আমি খুব জোর বেঁচে গেছি, আমার স্ত্রী আপনাদের মতো নয়’ এই মন্তব্যের অন্তর্নিহিত অর্থ  পড়তে পেরেছিলাম বটে। আমাদের মত সহজ, স্বাভাবিক প্রশ্ন গুলো না করে বিনা প্রশ্নে সমস্ত অসাম্যের অলিখিত নিয়মে অংশগ্রহণ করা একজন মহিলাই নিরাপদ এবং কাঙ্ক্ষিত। এভাবেই সংখ্যাগরিষ্ঠরা ‘ভারসাম্য’ বজায় রেখে চলেছেন ‘সাম্য’র দিকে বিন্দুমাত্র দৃকপাত না করে।  

আপনার জন্য



Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 654

অমৃতপানের জন্য ।। কৌশিক চক্রবর্ত্তী
Kausik Chakraborty ।। কৌশিক চক্রবর্ত্তী

  অমৃত পানের জন্য কৌশিক চক্রবর্ত্তী     একসমুদ্র মন্থনে ঢেলে দিচ্ছো অবগাহন মেঘ ঢুলে পড়ছে ব্যস্ত নাবিকের গায়ে- ইতিহাস ঘেঁটে দেখো শেষ কবে ভাষা ফুরিয়েছে বলে আমি সেজে উঠেছি নিঃস্ব, কপর্দকহীন...  শুয়ে থাকার একটা নির্দিষ্ট দিক আছে, অজস্র রোপণের পরও সেখানে গজিয়ে উঠছে না ধান - শুধুমাত্র প্রতিটি শূন্যস্থান এখনো স্বাধীন; যেকোনো নিঃশ্বাসে তার বিপণন হবে এমন কথা আমি দিয়ে আসিনি খোলাবাজারে- বেঁচে থাকতে গেলে আমি খালিপেটে মন্থনের অমৃত ঢেলে নিই গায়ে এখন একটা দেশলাই কাঠির খুব প্রয়োজন...       

Oct 3, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 704

বৃত্তের বিন্দু ।। সুব্রত কুমার বুড়াই
Subrata Kumar Burai ।। সুব্রত কুমার বুড়াই

বৃত্তের বিন্দুসুব্রত কুমার বুড়াই   জীবনটা একটা বৃত্তের মধ্যেই ঘুরছেবাহিরটা আজও জানা হলোনা তেমনভাবেচেনা অচেনা কত প্রিয়জনযে যার মতো করে টানেকেউ বা ঠেলে দেয় দূরে।বৃত্তের মধ্যে ঘুরপাক খেতে খেতে ক্লান্ত আমি।প্রাণপণ চেষ্টা করি বৃত্ত ভাঙার‚ পারিনা।আমার জীবন কানে কানে পরিহাসের গল্প শোনে।বারবার…

Oct 4, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 635

জখমি বেগানা দৌড় ।। জ‍্যোতির্ময় মুখার্জি
Jyotirmoy Mukherjee ।। জ‍্যোতির্ময় মুখার্জি

জখমি বেগানা দৌড়জ‍্যোতির্ময় মুখার্জি   রোজই তো গুঁড়ো গুঁড়ো হয়             জখমি বেগানা দৌড় কেবলই ফুরানো পথ জুড়ছে জুড়ছে প্রথম আলো হাতে তুমি ডাক দিয়ে দেখো আলতো দহনে ছুঁয়ে যাবো সব           …

Oct 4, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 278

যে পাখিরা ঘরে ফেরে নি ।। সুকন্যা সাহা
Sukanya Saha ।। সুকন্যা সাহা

  যে পাখিরা ঘরে ফেরে নি  সুকন্যা   সাহা    ঘর  থাকলেই ফিরতে হবে ? প্রতিদিন ? যেমন করে  বাসায় ফেরে  পাখিরা ? যেমন করে ঢেউ ফেরে পাড়ে ? ফেরা কি এতই আমোঘ ? জরুরী ? একদিন বিকেলে হাঁটতে  বেরিয়ে  যদি না ফেরে কেউ ? কিংবা ফেরে অন্য কোনো গোলার্ধে   পরিযায়ী  পাখি…

Oct 4, 2018
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 191

সারমেয় কথা ।। রথীন পার্থ মণ্ডল
Rathin Partha Mondal ।। রথীন পার্থ মণ্ডল

      আবার গেলাম রতনদের বাড়ি। দরজা পেরিয়ে উঠোনে প্রবেশ করলাম। রতনের মা যেন দেখেও দেখল না। দূর দূর করে তাড়িয়েও দিল না। আর কেনই বা দেবে? ক্লান্ত হয়ে গেছে তাড়িয়ে দিতে দিতে। আমিও আর এঁটো থালাতে মুখ দিলাম না। আর দরকারও…

Jun 21, 2020
Card image




কবিতা মহুল ওয়েব প্রথম সংখ্যা  দেখেছেন : 1032

মন্দনা সিরিজ থেকে‌ ।। বঙ্কিম দে
Bankim Dey ।। বঙ্কিম দে

  মন্দনা সিরিজ থেকে বঙ্কিম দে   উভয়েরই সাধ ছিল, প্রতীক্ষা তারা তুলি নিপুণ আঁকবে চোখের ভিতর উদ্বেল মুখ । এখন জানি আঁকো, বিস্মরণ শিলায় অন্যের অবয়ব l স্মৃতিকাতরতা নির্মম এক অবাঞ্ছিত খেলা ৷ অবশ অতীত রূপকথা অলীক ফুলের সুঘ্রাণে আমার ইদ্রিয় সকল ঘন মেদুরতা মোড়কে ঢাকা । অপরিণীতা ;…

Jun 19, 2016
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 340

ত্রাণ ।। অংশুমান চক্রবর্তী
Anshuman Chakraborty ।। অংশুমান চক্রবর্তী

  লকডাউনে ঘরবন্দি প্রত্যেকেই। উপার্জন বন্ধ দিনমজুরদের। স্থানীয় ক্লাবের উদ্যোগে কিছু অভুক্ত মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে সামান্য ত্রাণ। দূরত্ববিধি বজায় রেখে সেটুকু পাবার আশায় লাইনে দাঁড়িয়েছেন অনেকেই। এই কাজটি তদারকি করছেন ক্লাব সম্পাদক অনুপম। তিনি একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী। লকডাউনের জন্য…

Jun 29, 2020
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 135

হ্যাপি এন্ডিং ।। রিয়া মিত্র
Ria Mitra ।। রিয়া মিত্র

      কাল মায়ের মুখে রূপকথার রাক্ষস-খোক্কস, ব্যাঙ্গমা-ব্যাঙ্গমী, পক্ষীরাজ ঘোড়ার গল্প অনেক রাত অবধি শুনেছে বুল্টি। তবে সবথেকে ভালো লেগেছে তার রূপকথার ঐ অংশটা, যেখানে সোনার কাঠি ছুঁইয়ে দিলেই রাজকন্যা সমস্ত বাধা থেকে মুক্ত হন বা গল্পের শেষে যখন সুয়োরাণী দুয়োরাণীতে পরিণত…

Jun 21, 2020
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 245

মা ।। অমৃতা খেটো
Amrita Kheto ।। অমৃতা খেটো

    শহরতলির এক গৃহস্থ বাড়িতে ছয় মাসের জন্য দামী টেলিভিশন সেটটি প্যাকিং বাক্সবন্দী করা হল। তখন মোবাইলের যুগ আসেনি, বাড়ির সকলে টিভিতে মশগুল থাকত। তবুও মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী একমাত্র পুত্রের জন্য এই ব্যবস্থা হল। পুত্রটি স্কুলের উজ্জ্বল রত্ন। সেই বছরে ছেলেটি জেলায়…

Jun 27, 2020
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 288

যাযাবর ।। দিব্যেন্দু শেখর দাস
Dibyendu Sekhar Das ।। দিব্যেন্দু শেখর দাস

যাযাবরদিব্যেন্দু শেখর দাস     বিষণ্নতার মন ছুঁয়ে যেতে পারে না পরিযায়ী পাখিরা বসে থাকি শেষ বন্দরে চেনা মানুষের মুখোশের ভিড়ে বয়ে যায় জলরাশি আছড়ে পড়ে ঢেউ গভীর সমুদ্রে মুক্ত খুঁজে ঘর সাজানোর চেষ্টা করি আমি অচেনা ঢেউ। সাদা খাতা ভরে যায়…

Oct 4, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 620

আবর্তিত যাযাবর ।। অমরজিৎ মণ্ডল
Amarjit Mandal ।। অমরজিৎ মণ্ডল

আবর্তিত যাযাবর অমরজিৎ মণ্ডল লুকায়িত বৈশাখী অভিমানে এক অস্তিত্বের যন্ত্রণা । অপ্রাপ্তির প্রতিনিয়ত ক্রন্দনে খাঁচাবন্দী এক দিশেহারা চাতক। অপূর্ণতার নির্বাসিত ক্লান্ত বিকেলে নির্ঘুম এক বসন্তের শহর । আলোহীন রাত্রির নিষ্পলক দৃষ্টিতে বিস্ময়ের ছলনাময় মুখোশ । স্বরলিপির নিদারুণ অনুপ্রাসে প্রেমের বিষাক্ত…

Oct 3, 2018
Card image




কবিতা মহুল ওয়েব প্রথম সংখ্যা  দেখেছেন : 1007

প্রজন্ম || অমিতেশ মাইতি
Amitesh Maity ।। অমিতেশ মাইতি

  প্রজন্ম অমিতেশ মাইতি   আমার পূর্বপুরুষদের কাউকে কখনো দেখিনি। দোতলার হলঘরে তেলরঙে সবাই তাঁরা জেগে কাউকে কি পাহারা দেন‚ নাকি নিজেদেরই দেখানো? স্যাঁতসেঁতে বন্ধ ঘর                             মাকড়সার ফাঁদ আরশোলা অথচ মা আমার রোজই আঁচল দিয়ে…

Jun 19, 2016
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 550

অন্য ঘর ।। তপন রায়চৌধুরী
Tapan Roychowdhury ।। তপন রায়চৌধুরী

অন্য ঘর তপন রায়চৌধুরী       ঘর সাজানো নেই আমাকে অনুরোধ কোর না তোমার ঘরে যেতে আমি পারব না। মনে আছে ? সেদিন তোমাকে বলেছিলাম ঘরটাকে সুন্দর করে সাজিয়ে রেখো – ঢোকবার মুখেই থাকবে দুটো পাতাবাহারের ঝাড় ঘরের মধ্যে একটা টেবিলে থাকবে শুধু…

Oct 3, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 333

মুখোমুখি ।। আকাশ সৎপতি
Akash Satpati ।। আকাশ সৎপতি

মুখোমুখি আকাশ সৎপতি স্মৃতির উল্লম্ফনে মেঘবালিকার আর্তি শিহরণ জাগানো শূন্যস্থান এই চিরস্থায়ী গতিপ্রকৃতির আশ্রয় স্থূলতার কথা বলে জন্মের আদি অন্তে লীন হয়ে আছে বিস্ময় শুধু সন্ধ্যা ফুরিয়ে সব ঝাপসা হলেই আমার মুখোমুখি বসে পূর্বজন্ম চুপিসারে বোঝায় আমৃত্যু ঋণ বাইরের শব্দেরা…

Oct 3, 2018
Card image




অনুগল্প সংখ্যা । জানুয়ারী ২০১৯   দেখেছেন : 616

ঘরে বাইরে ।। দীপঙ্কর বেরা
Dipankar Bera ।। দীপঙ্কর বেরা

ঘরে বাইরেদীপঙ্কর বেরা হাত থেকে পড়ে যাওয়া পার্স কুড়াতে টপ জিনস পরা যেই ঝুঁকেছে অমনি সমর ঠেলা দিল দিদিতাকে - ওই দেখো। দিদিতাও দেখল মেয়েটির সাদা ধপধপে বুক অনেকটাই দেখা গেল। কানে হেডফোন তাই একবার চেষ্টায় পারল না তাই আবার। দিদিতা ঝাঁঝ দিল - তুমি…

Jan 29, 2019
Card image




প্রেমের গদ্য   দেখেছেন : 509

শিমুল, আমার প্রিয় শিমুল ।। শ্রীজিৎ জানা
Srijit Jana ।। শ্রীজিৎ জানা

  শিমুল, মনের কোণে যখন হেমন্তের শূন্যতা, করঞ্জর ডালে বসা কোকিলের কুহু বলে গেল তোর আসার কথা। জানি, তুই আসবি প্রতিবারের মতো ফাগুন রঙে রাঙা হোয়ে। খোঁপায় রক্ত পলাশ। দু' গালে আবিরের আদুরে আলপনা। আমার চোখ মুখে তখন শীতেরর চিহ্নটুকু নেই।…

Mar 14, 2020
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 142

রক্ত নীলা ।। বন্দনা কুণ্ডু
Bandana Kundu ।। বন্দনা কুণ্ডু

    আজ বোসবাড়ির ছোটো ছেলের বউভাত। বউ এর ফুলের গহনা, ফুলসজ্জার খাট, বাড়ি ঘর সাজানো, এমনকি মস্ত এক গেটও বানানো হবে ফুল দিয়ে। সেইজন্য গাঁদা, রজনীগন্ধা, গোলাপ, চন্দ্রমল্লিকা আর জুঁই ফুলের ভর্তি ভর্তি ঝুড়ি যাচ্ছে আমার বাগান থেকে। আমি নীলা... সাধারণ মালির মেয়ে... নবম শ্রেণীর পড়ার…

Jun 27, 2020
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 519

আমাদের ঘর ।। হরিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়
Harit Bandhopadhyay ।। হরিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়

  আমাদের ঘর হরিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় একবার ঘরের মধ্যে এসে দাঁড়াও ভালো করে দেখো ঘরটাকে তুমি দাঁড়িয়ে আছো, আমিও দিনের শেষে এখানেই ফিরব আমরা জানলাগুলোর দিকে তাকাও ওগুলো আমাদের মনের রঙ কখনও বৃষ্টি, কখনও রোদ, কখনও মেঘলা, আমরা সবসময় জানলা খোলা রাখব জানলার…

Oct 4, 2018
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 290

বিড়ালিনী ।। ব্রতী মুখোপাধ্যায়
Brotee Mukhopadhyay ।। ব্রতী মুখোপাধ্যায়

বালকনিতে ঋতম ধোঁয়ার রিং ছুঁড়তে ছুঁড়তে দেউলি পৌঁছে যায়। দেউলি এক গ্রামের নাম যেখানে কোনোদিন তার পা পড়েনি, যেখানে বাঁশবাগানের মাথার ওপর হলুদ রঙের চাঁদ, নদীর ধারে কাশ, মেয়ে বললেই কুসুম, তাদেরই একজনার ও মাই গড বুকের গড়ন, হায়!   …

Jun 27, 2020
আরও পড়ুন
«
  • 1
  • 2
  • 3
  • 4
  • 5
»

সর্বাধিক জনপ্রিয়



করোনা Diary



সহজ কবিতা সহজ নয় কঠিনও নয়



আমাদের কথা

আমাদের শরীরে লেপটে আছে আদিগন্ত কবিতা কলঙ্ক । অনেকটা প্রেমের মতো । কাঁপতে কাঁপতে একদিন সে প্রেরণা হয়ে যায়। রহস্যময় আমাদের অক্ষর ঐতিহ্য। নির্মাণেই তার মুক্তি। আত্মার স্বাদ...

কিছুই তো নয় ওহে, মাঝে মাঝে লালমাটি...মাঝে মাঝে নিয়নের আলো স্তম্ভিত করে রাখে আখরের আয়োজনগুলি । এদের যেকোনও নামে ডাকা যেতে পারে । আজ না হয় ডাকলে মহুল...মহুল...

ছাপা আর ওয়েবের মাঝে ক্লিক বসে আছে। আঙুলে ছোঁয়াও তুমি কবিতার ঘ্রাণ...

 

 

কবিতা, গল্প, কবিতা বিষয়ক গদ্য পাঠাতে পারেন ইউনিকোডে ওয়ার্ড বা টেক্সট ফর্মাটে মেল করুন admin@mohool.in ।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ- www.mohool.in এ প্রকাশিত লেখার বিষয়বস্তু ও মন্তব্যের ব্যাপারে সম্পাদক দায়ী নয় ।