Mohool Potrika
Login Here  Login::Register
  • অণুগল্প সংখ্যা । বর্ষা । ২০২০
  • শোনো গো দখিন হাওয়া
  • মহুল ওয়েব ।। অষ্টম সংখ্যা ।। একুশে ফেব্রুয়ারি ২০
  • মহুল ওয়েব ।। উৎসব সংখ্যা ।। মহলয়া ২০১৯
  • মহুল ওয়েব অনুগল্পের আড্ডা (১)
  • মহুল ওয়েব ।। উৎসব সংখ্যা ।। মহলয়া ২০১৮
  • মহুল ওয়েব দ্বিতীয় সংখ্যা
  • মহুল ওয়েব প্রথম সংখ্যা
    আঙুলে ছোঁয়াও তুমি কবিতার ঘ্রাণ...

আমাদের কথা

আমাদের শরীরে লেপটে আছে আদিগন্ত কবিতা কলঙ্ক । অনেকটা প্রেমের মতো । কাঁপতে কাঁপতে একদিন সে প্রেরণা হয়ে যায়। রহস্যময় আমাদের অক্ষর ঐতিহ্য। নির্মাণেই তার মুক্তি। আত্মার স্বাদ...

কিছুই তো নয় ওহে, মাঝে মাঝে লালমাটি...মাঝে মাঝে নিয়নের আলো স্তম্ভিত করে রাখে আখরের আয়োজনগুলি । এদের যেকোনও নামে ডাকা যেতে পারে । আজ না হয় ডাকলে মহুল...মহুল...

ছাপা আর ওয়েবের মাঝে ক্লিক বসে আছে। আঙুলে ছোঁয়াও তুমি কবিতার ঘ্রাণ...

অণুগল্প সংখ্যা । বর্ষা । ২০২০



IMG 20200628 185805  

 

 

 

বাবা চেয়েছিলেন দোতলার পশ্চিমের ঘরটির উত্তর দিকে কোনও জানলা থাকবে না। থাকবো আমি। ওদিকে ঝোপঝাড় আর সেই পুকুর! তাই বন্ধ থাকবে ওদিক। তার চেয়ে পশ্চিমদিকে দুটো বড় বড় জানলা হয়ে যাক।
আমি মানতে পারলাম না। দক্ষিণ এর জানলা রোমান্টিক, শুনেছি পড়েছি। দক্ষিণেও যদি সমস্যা, তাহলে আমার অন্তত একটা উত্তর থাকুক।
অনেক তর্ক রাগ অভিমানের পর ঠিক হয়ে যায় উত্তর। আমার উত্তুরের জানলা। কে জানতো এই এক উত্তুরের জানলাই আমার জীবনের পরম আশ্চর্য হয়ে উঠবে!

       শিরীষ বড় হয়ে গেল দেখতে দেখতে। তার ডালপালার সংসার থেকে একখানা হাত বাড়িয়ে দিয়েছে  জানলায়। তোমার হাতে কী দিই বলোতো শিরীষ! আমার তো এই বাউন্ডুলে জীবন। ঘরময় ঝুল, ধুলো, ঘামে ভেজা জামা আর বই। কী বা দিতে পারি! বরং বিকেলের রোদ পড়ে এলে সারাদিনের গল্প শোনাবো তোমায়। কিংবা রেডিওর দু এক কলি রবিঠাকুর। শুনবে তো?

          প্রতিদিন যেভাবে বিকেল আসে দুপুরকে না জানিয়ে, তেমনি এই বিকেলগুলো গোপনে মায়াময় হয়ে উঠলো। নির্জন দুপুরের ডাহুক যেমন ঝুপ করে লুকিয়ে যায় বিকেলের পায়ের শব্দে, তেমনি আমিও আড়াল হয়ে যাই আমাদের মধ্যবিত্ত সংসারের সমস্ত কোলাহল থেকে। এক্কান্নবর্তী পরিবারে নির্জনতার ফুরসত, কম কথা নয়। কথা হয় হাওয়ায় হাওয়ায়। এই যে পাতার নির্ভার প্রাণময় দুলে ওঠা, তা কি এমনি এমনি? এ যে অনুপম নির্জন অভিসার... আমার অফুরন্ত ইচ্ছেরা পেয়ে যায় স্বর্গের ডানা।
      
   পাতার এমন মৃদু দুলে ওঠা দেখে আমার ছোটোবেলা ভেসে আসে। বটগাছের দুটো ঝুরিতে কায়দা করে দোল দোল দুলুনি, রাঙা মাথায় চিরুনি...। বর টর আসতো না যদিও, তবে কুসুমদি বলতো আর দুলিয়ে দিত খুব। সে এখন এপাড়ায় থাকেনা। মেয়েদের বড় হয়ে গেলে যে অন্যপাড়ায় চলে যেতে হয়! কুসুমদির কাছে শুনেছি, আমি তখন খুব ছোটো, হামাগুড়ি ছেড়ে ওই হাঁটতে শিখেছি সবে। খেলতে খেলতেই নাকি এক্কেবারে পুকুর  পাড়ে। ঝুঁকে পড়ে কিছু খুঁজছিলাম। নিজের ছায়া? জানিনা। ছায়া কি সকলকে এভাবেই টানে? হয়তো ডুবেই  যাচ্ছিলাম। তখন তো  সাঁতার জানি না। একটি হাত এসে আমায় টেনে ধরে। কুসুমদি...
        এরকম ছাপোষা কত জীবন কতভাবেই তো হাবুডুবু খায়। এমন করে যদি টেনে তোলার কেউ থাকতো, কত জীবন কত রোমাঞ্চ ছুঁয়ে যেত তাহলে। এই জল এই পুকুর নাকি আমায় টানে! কতবার যে ডুবে গেছি, তারপর ভেসে উঠেছি  আবার...পুনর্জন্মের ছলে। সেই থেকেই আমার বাড়ি আমাকে আড়াল করে রেখেছে ওই জল থেকে ওই পুকুর থেকে। চোখের আড়াল করলেই কি মনের আড়াল হয়? জল ডাকে, তার ওই হাল্কা কেঁপে ওঠা উপরিভাগ  প্রেমিকার উন্মুখ ঠোঁটের মতো মনে হয়। মনে হয় অবগাহন করি। যাওয়ার রাস্তা নেই। ওই একমাত্র উত্তুরের জানলা দিয়েই চোখ ছুঁয়ে আসে সে সব কোমল অধররাশি।

         সন্ধে নামে। হাই তুলতে তুলতে বুজে যায় শিরীষের অজস্র পাতার চোখ। দু একটা পাতা আধো আধো ঘুমে দেখে নেয় ফিরেছে কিনা বান্ধব পাখি সকল। তারপর  সকাল হয়। জানলা দিয়ে আসে  সুবাস। আমি চোখ মেলে দেখি তার সবুজে সাজানো সংসার।
   তবে ঝড় বৃষ্টির দিনে অভিমান দেখেছি শিরীষের। গর্জন করে রাগে, ভয়ে। ঝাপটা মারে। জানলার পাল্লায় ধাক্কা দেয়। ভেতরে ঢুকতে চায়। নীচ থেকে মায়ের চিৎকার–'ও রে জানলাটা বন্ধ কর, ঝড়ে ভেঙে যাবে যে'। মন চায় না, তবু বন্ধ করি । কিছুক্ষণ পর খুলে দেখি– ভেজাচোখে মুখ নীচু। কী করি বলোতো শিরীষ, মা যে বকতো।  আর হ্যাঁ শোনো– মা কিন্তু তোমাদের মোটেই  দোষ দেয়নি, বলেছে–ঝড় নাকি জানলা ভেঙে দেবে!
শিরীষ হাসে না, এলোমেলো হয়ে স্থির হয়ে ঝুঁকে থাকে। আর আমার ঘরময় ছড়িয়ে থাকে তার খসা  পাতা। মানুষের ছেলেমেয়ে আমরা। কী করে শুনি বলো তোমার ওসব খসাপাতার কান্না!

          যত দিন যায় পশ্চিমের এই ঘর, উত্তরের এই জানালা আমায় ছাড়ে না। আমিও কি ছেড়েছি! জানলায় কত অক্ষর ওড়ে, প্রজাপতির মতো। তাদের অনুনয় বিনয় করি। আঙুলে ধরে খাতায় এনে বসাই। তারা শোয়। ঘুমোয়। আর আমাকে জাগিয়ে রাখে। শিরীষের ছায়া পড়ে জলে। জল কাঁপে। শিরীষের ছায়া আমায় ডাকে...আয় আয়। সেই জল সেই কাঁপন! ছেলেবেলার সেই ঝুঁকে পড়া আবার ফিরে আসে। আমায় টেনে নিয়ে যায়...
    ডাক্তার আসে। ওষুধ দেয়, বলে–এসব মায়া।  জানলার অসুখ। ছায়া টানে , জল টানে। উপেক্ষা করতে পারি কি? গতবছর  কাঁদতে কাঁদতে মা আমার দরজায় তালা ঝুলিয়ে গেছেন। আমি এখন ঘরেও না, বাইরেও না। তবে কোথায়!

আপনার জন্য



Card image




উৎসব সংখ্যা : ২০১৯ : গদ্য   দেখেছেন : 538

অনাকাঙ্ক্ষিত ।। প্রিয়াঙ্কা
Priyanka ।। প্রিয়াঙ্কা

   তর্ক করতে হয়েছে এবং তর্কের শেষে অপ্রিয় হতে হয়েছে এসব বিষয় যখনই উত্থাপন করেছি।  কখনো এতটাই অপ্রিয় হয়েছি, ঘুরে দাঁড়াবার ইচ্ছেটুকুও হারিয়েছি। মাঝে মাঝে একেকটা  কথপোকথন মনে পড়েছে আর মুষড়ে পড়েছি। তারপর হয়তো নিজেকেই আবার উঠে দাঁড়াতে সাহায্য করেছি। মাঝে মাঝে…

Sep 22, 2019
Card image




প্রেমপত্র   দেখেছেন : 398

প্রেমপত্র।। নিরঞ্জন জানা
Niranjan Jana ।। নিরঞ্জন জানা

  প্রিয় পলাশ,                পাগল আমার। মনে পড়ে, গত বছর বলে গেলি বসন্ত উৎসবে আসবি। এলি। তবে বড্ড দেরি কোরে। আর হ্যাঁ, আগেই বলে দিচ্ছি–বকুলের পানে একদম তাকাবি না  কিন্তু। ভোরের  আলো ফোটার আগেই যখন বসন্ত…

Mar 10, 2020
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 381

দেশ ।। কাজল দাস
Kajal Das ।। কাজল দাস

দেশ কাজল দাস     দেশ বলতে নদীর পাশে গ্রাম লোকে তাকে হিরুরডিহি বলে দেশ বলতে একটুখানি থাম পা দুটোকে ভিজিয়ে নি জলে দেশ বলতে পলাশ ফুলের বনে সারি সারি শাল শিমুলের গাছ দেশ বলতে মাদল বাজা তালে সাঁওতালিদের কোমর ধরে নাচ দেশ বলতে দুয়ারসিনি-র বন পাহাড় ঘেরা শাল-পিয়ালের ছায়া বসন্তবৌরী ডাকছে সেথায় শোন দেশ…

Oct 4, 2018
Card image




অনুগল্প সংখ্যা । জানুয়ারী ২০১৯   দেখেছেন : 829

স্বপ্নতরী ।। রূপময় চ্যাটার্জী।
Rupamoy Chatterjee।। রূপময় চ্যাটার্জী

স্বপ্নতরীরূপময় চ্যাটার্জী         পাঁচ বছর ধরে একটু একটু করে টাকা জমাচ্ছেন নরেনবাবু, একটা নতুন বাইকের জন্য। ছোট্ট এক মুদিখানার দোকান চালান তিনি। তেমন বেশি উপার্জন হয়না! তাও শখ,নিজে বাইক কিনবেন,এবং তাতে করে তিনি ঘুরতে যাবেন..! ২.   ...নার্সিংহোমের কাউন্টারে একলক্ষ টাকা জমা দেওয়ার…

Jan 29, 2019
Card image




উৎসব সংখ্যা : ২০১৯ : গদ্য   দেখেছেন : 572

ও জীবন রে... ।। শ্রীজিৎ জানা
Srijit Jana ।। শ্রীজিৎ জানা

বিকেলর রোদপিয়ন উঠোনে রেখে যায় মনখারাপ। আজও সিঁথি থেকে মেটে সিঁদুর মোছেনি বাসনা। সেই কবে বিহারের ওমপ্রকাশ বিয়ে করে রেখে চলে গেছে,আর ফেরেনি। গাঁয়ে বলে বাসনি শকুন্তলা। বাপের ভিটেয় ভাইদের ফরমাশ খাটতে খাটতে চোখের পাতা ভারী হয়। অপেক্ষমান তারায় ঘর…

Sep 22, 2019
Card image




প্রেমের গদ্য   দেখেছেন : 558

প্রেম একবারই আসে জীবনে ।। উমাশংকর নিয়োগী
Umasankar Neogi ।। উমাশংকর নিয়োগী

আমাদের  কিশোরবেলায়  প্রেম তো দূরস্থান। শব্দটি  বড়দের  কাছে  উচ্চারণ করাও  ধৃষ্টতার সামিল ছিল।  অন্যান্য  মায়েরা  তাদের  সন্তানকে গোপাল, নাড়ুগোপাল, সোনা, মানিক বলে  ডাকলেও  কী জানি  আমার মা আমাকে  মুখপোড়া  ছাড়া  কিছু  বলত না।  প্রথম দিকে  রহস্য  উদ্ঘাটন  করতে পারিনি।  অনেক …

Mar 10, 2020
Card image




অনুগল্প সংখ্যা । জানুয়ারী ২০১৯   দেখেছেন : 577

পার্থক্য ।। অনুভা নাথ
Anuva Nath । । অনুভা নাথ

পার্থক্য অনুভা নাথ NH - 34 এর ওপর দিয়ে জাগুয়ার হাওয়া কেটে হুস্ শব্দে এগিয়ে যাচ্ছে। কিছুক্ষণ বাদে একটা ছোট্ট ধাবার সামনে গাড়িটা দাঁড়াল। গাড়ি থেকে নেমে এল সদ্য কৈশোর পেরোনো একটি মেয়ে ডল্ ও তার মা। ধাবার সামনে এসে ডল্ বলল-- …

Jan 29, 2019
Card image




উৎসব সংখ্যা : ২০১৯ : গদ্য   দেখেছেন : 467

বিতানের রবিবার ।। শীর্ষেন্দু ভট্টাচার্য
Sirshendu Bhattacharyya ।। শীর্ষেন্দু ভট্টাচার্য

বিতানের রবিবার শীর্ষেন্দু ভট্টাচার্য   আজ রবিবার। সকাল থেকেই বিতানের মন ছটফট করছে। আজকে সে খেলতেও যায়নি। আজ যে মায়ের সাথে পুজোর বাজার করতে যাওয়ার কথা। সারা বছর ধরে এই দিনটার অপেক্ষায় থাকে বিতান। কত কী ভেবে রাখে তার শেষ নেই। এবার তো…

Sep 22, 2019
Card image




কবিতা মহুল ওয়েব প্রথম সংখ্যা  দেখেছেন : 1226

জন্মভূমি।।বেবী সাউ
Baby shaw ।। বেবী সাউ

জন্মভূমি বেবী সাউ   হাত ভর্তি ঘাম লেগে  কপাল ছুঁয়েছে ভেজা মাটি  এ হাত প্রতিমা গড়ে, ইতিকথা  শোনে রোজ এসে  সরার গঠন ঘিরে ভরে রাখে প্রভূত শস্যের  কণা। মাঠ। কৃষকের  সন্ধের আজান বাজে দূরে  এ মাটি সকল জানে; মাটি ঘিরে শস্যের আঁচল    প্রত্যেক নদীর জলে প্রতিমার মুখ ভাসে সেই  কুমোরেরমেয়ে হাতে লেখে…

Mar 19, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 262

শ্রীচরণেষু মা ।। শোভন মণ্ডল
Sovan Mondal ।। শোভন মণ্ডল

 শ্রীচরণেষু মা  শোভন মণ্ডল     জন্মদিনে নিজের হাতে পায়েস খাওয়াতে পারোনি বলে শেষ চিঠিতে তুমি দুঃখ করেছো তুতুনের শরীরটা কয়েকদিন ভালো যাচ্ছেনা ভোলনি,  খোঁজ নিয়েছো ছত্রে ছত্রে জানতে চেয়েছো বাড়ির ছাদ চুঁয়ে আর জল পড়ে কিনা নতুন বুলডগটা এখনো কি সকাল হলেই বাইরে বেরতে চায়? ছাদের ডালিয়াগুলো শুকিয়ে যাচ্ছে…

Sep 22, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 535

পুরোনো সারেঙ্গি ।। রেবা সরকার
Reba Sarkar।। রেবা সরকার

পুরোনো সারেঙ্গি রেবা সরকার     তাইতো আমি এক মহানগরী ছোট্ট ঘর দুয়ার ফেলে তিস্তা করলাকে এড়িয়ে গঙ্গার কিনারে বসে-- কবিতা লিখে যাই। লাল সিঁথি কালো ছোপছোপ উদাস বাতাস উন্মুক্ত করে মুখ চিবুক হা-হুতাশ ছড়িয়ে পড়ে সারেঙ্গিটা পুরোনো ধুলোয় স্তূপ স্তূপ নেকড়া দিয়ে…

Oct 3, 2018
Card image




কবিতা মহুল ওয়েব প্রথম সংখ্যা  দেখেছেন : 1274

ছেঁড়া দ্বীপ।।সুধীর দত্ত
Sudhir Dutta ।। সুধীর দত্ত

ছেঁড়া দ্বীপ  সুধীর দত্ত   পাথর পাথর আর চারদিকে দিগন্তরেখার নীচে যে কুহক জল সে মাড়িয়ে চলে যায়‚ গোড়ালি অবধি বালি‚ গাঙ--পায়রাদের ডানার শুভ্রতা নিয়ে সে দ্যাখে উজ্জ্বল রোদ‚ নৌকাটির সারা গায়ে মাছদের আঁশ লেগে আছে। এ গভীর মীনরাজ্য‚ পাথরের সিঁড়ি বেয়ে নেমে যাবে আদিম স্ফটিক স্বচ্ছ জলে। ও কি আর…

Mar 13, 2018
Card image




অনুবাদ কবিতা মহুল ২  দেখেছেন : 664

প্রাতরাশ ।। অনুবাদ : অংকুর সাহা
Jack Prevert ।। জাক প্রেভের

    প্রাতরাশ  জাক প্রেভের অনুবাদ : অংকুর  সাহা মূল কবিতা- Breakfast     মানুষটি কাপে  কফি ঢাললেন  কফির কাপে  দুধ ঢাললেন  দুধ-কফিতে  চিনি মেশালেন  কফি চামচ দিয়ে  নাড়লেন  দুধ-কফি পান শেষ করে  নামিয়ে রাখলেন কাপ  একটি কথাও না  সিগারেট  ধরিয়ে   ধোঁয়ার  রিং বানালেন  ছাই ফেললেন  ছাইদানিতে  একটি কথাও না  আমার দিকে  এক ঝলক  তাকানোও না  উঠলেন  টুপি দিলেন  মাথায়  রেইনকোট পরলেন  কারণ বাইরে বৃষ্টি  বেরিয়ে গেলেন  বৃষ্টির মধ্যে  একটি কথাও না  আমার দিকে  এক ঝলক  তাকানোও না  আর আমি  আমি  দুহাতে  মাথা রেখে  কাঁদলাম         …

Jul 26, 2018
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 242

জীবন মানে ।। নিরঞ্জন জানা
Niranjan Jana ।। নিরঞ্জন জানা

  -- সজল তোদের পশ্চিম মেদিনীপুরে কি এমন     ঝড় হয়েছে? ঝড় হয়েছেতো কোলকাতায় ।    তবে , সবচেয়ে ধ্বংসাত্মক ঝড় হয়েছে দুই    চব্বিশ পরগনায়। -- ডাক্তারবাবু, শুনলাম আপনি পূর্বাভাস জেনেও    ঝড়ের আগের দিন কোলকাতা ছেড়ে দক্ষিণ     চব্বিশ পরগনায় চলে গিয়েছিলেন ? -- কোলকাতায় আমার…

Jun 27, 2020
Card image




উৎসব সংখ্যা : ২০১৯ : গদ্য   দেখেছেন : 500

স্বরবর্ণ কিংবা কালোবিড়াল ।। মলয় পাহাড়ি
Malay Pahari ।। মলয় পাহাড়ি

  খোলাপিঠ। একটা অনন্ত  ক্যানভাস। একগুঁয়ে। এখন সে কোন রং ছোঁবেনা , এখন ব্লকেজ। অথচ সে ই অজানিত ভাবে নির্জন সেলফি ঝুলিয়ে দিচ্ছে দেওয়ালে ,করিডোরে। হিলস্টেশনে মেঘ ঝুলে আছে। বৃষ্টি নামছে না। এ দৃশ্যের কাছে শিল্পী বন্দী। দশ আঙুলে এতো রং…

Sep 27, 2019
Card image




প্রেমপত্র   দেখেছেন : 275

প্রেমপত্র ।। শান্তিব্রত বারিক
Santibrata Barik ।। শান্তিব্রত বারিক

  প্রিয় উদ্ভিদবিদ্যা অনার্স, আজ তুই নাচের কথা বলছিলি। মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার পর স্কুলের অনুষ্ঠানে শেষবার নেচেছিলি “চুড়ি যো খনকে”-এর তালে। হঠাৎ করেই একের পর এক স্মৃতির লতা বেয়ে উঠছিল তোর লাউডাঁটা নরম ঠোঁট। সবাই শুনছিলাম মন দিয়ে। আমি ছাড়া, না, না…

Mar 10, 2020
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 516

দাগ-৩৪ ।। দুঃখানন্দ মণ্ডল
Dukhananda Mandal ।। দুঃখানন্দ মণ্ডল

দাগ-৩৪ দুঃখানন্দ মণ্ডল     লুকিয়ে যার সাথে শেয়ার করি মন মন ভেঙে যাওয়ার কথায় প্রেম হয়ে যায় কি কথা কি ভাষা কেমন মন-- সব বাঁধা পড়ে। সব গোপনীয়তা কেমনভাবে মুক্ত বিহঙ্গ হয় মনে হয় না কিছু হারিয়ে যাওয়ার কথা তুমি যাকে বিচ্ছেদ…

Oct 4, 2018
Card image




অণুগল্প ।। বর্ষা ।। ২০২০  দেখেছেন : 348

ঘরে ফেরা ।। সোনালী বাকলী
Sonali Dey ।। সোনালী দে

লেদ কারখানার কর্মী বাপি হন্তদন্ত হয়ে বাড়ি ফিরেই স্ত্রী-রূপাকে বলল- 'দরকারী জিনিসগুলা গুছি লও। আজ রাতেই বেরিয়ে পড়তে হবে' রূপা বলল-'রাতেই!' 'হ্যাঁ রাতেই। দিনের বেলা পুলিশ ঝামেলা করবে' 'কাজ বন্ধ। টাকা নাই। এখেনে থাকলে না খেয়ে মরতে হবে। ছেলের কত টাকার ওষুধ লাগে, কুথা…

Jun 27, 2020
Card image




উৎসব সংখ্যা :২০১৮ : কবিতা  দেখেছেন : 521

বৃষ্টি ।। সেখ মনিরুল ইসলাম
SK. Manirul Islam ।। সেখ মনিরুল ইসলাম

  বৃষ্টি সেখ মনিরুল ইসলাম    এভাবে বৃষ্টি আসবে আজ কেউ কি ভেবেছিল? যেমনটি তুমি আসবে এভাবে, ভাবেনি অনুপম। কাঠফাটা মাটির কান্নায় যে বৃষ্টি আছড়ে পড়ে বুকে তার একটুকরো যদি দিতে তখন তুমি আমাকে যেকোনো নামেই ডেকে নিতে।      

Oct 3, 2018
Card image




উৎসব সংখ্যা : ২০১৯ : গদ্য   দেখেছেন : 601

কালো মানুষ ভালো মানুষ ।। অ্যাঞ্জেলিকা ভট্টাচার্য
Anjelika Bhattacharjee ।। অ্যাঞ্জেলিকা ভট্টাচার্য

কালো মানুষ ভালো মানুষঅ্যাঞ্জেলিকা ভট্টাচার্য   টগবগ টগবগ ঘোড়া ছুটছে। টাঙ্গা নয়। ঘোড়ায় টানা ঠ্যালা গাড়ি। রানীর মতো বসে আছে মাঝ বয়েসি এক মহিলা। আমার চেনা কয়লাওয়ালি। ঝাড়খণ্ড ঘেঁষা শহরে এভাবেই জীবিকার সন্ধানে এসে পড়ে কত বিচিত্র মানুষ । কয়লাওয়ালি , ও…

Sep 19, 2019
আরও পড়ুন
«
  • 1
  • 2
  • 3
  • 4
  • 5
»

সর্বাধিক জনপ্রিয়



করোনা Diary



সহজ কবিতা সহজ নয় কঠিনও নয়



আমাদের কথা

আমাদের শরীরে লেপটে আছে আদিগন্ত কবিতা কলঙ্ক । অনেকটা প্রেমের মতো । কাঁপতে কাঁপতে একদিন সে প্রেরণা হয়ে যায়। রহস্যময় আমাদের অক্ষর ঐতিহ্য। নির্মাণেই তার মুক্তি। আত্মার স্বাদ...

কিছুই তো নয় ওহে, মাঝে মাঝে লালমাটি...মাঝে মাঝে নিয়নের আলো স্তম্ভিত করে রাখে আখরের আয়োজনগুলি । এদের যেকোনও নামে ডাকা যেতে পারে । আজ না হয় ডাকলে মহুল...মহুল...

ছাপা আর ওয়েবের মাঝে ক্লিক বসে আছে। আঙুলে ছোঁয়াও তুমি কবিতার ঘ্রাণ...

 

 

কবিতা, গল্প, কবিতা বিষয়ক গদ্য পাঠাতে পারেন ইউনিকোডে ওয়ার্ড বা টেক্সট ফর্মাটে মেল করুন admin@mohool.in ।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ- www.mohool.in এ প্রকাশিত লেখার বিষয়বস্তু ও মন্তব্যের ব্যাপারে সম্পাদক দায়ী নয় ।